28 June 2010

অণুগল্প- কলম


রাত থেকেই বায়না ধরেছে বাড়ীর ছোট্ট মেয়েটি। আমাকে কিনবে। কিন্তু অতো রাতে যে দোকান বন্ধ, তাকে কে বোঝাবে? কারোরটা দিয়েই চলবে না। নতুন একটা আমাকে চায়। অবশ্য আমি আহামরী কেউ না। সামান্য কলম মাত্র। কত প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনেই না সবাই আমাকে ব্যাবহার করে। আজ ঐ ছোট্ট মেয়েটির আবদারে আমাকে খুব গুরুত্বপূর্ন কেউ মনে হচ্ছে।

নতুন কলম পেলে প্রায় সবাই খুশি হয়। এক সময় বাঁশের কঞ্চি কেটে বা পাখির পালকে, দোয়াতের কালিতে চুবিয়ে আমাকে ব্যাবহার করা হতো। ফাউন্টেন পেন, বলপয়েন্ট পেন ইত্যাদি কত বিবর্তনের পর আমার আজকের এই জেল পেন’এর রূপ। আমার এই পরিবর্তন আমার খুবই ভাল লাগে। মানুষ নিজের প্রয়োজনেই আমাকে কাজে লাগার মতো করে সাজিয়ে নিয়েছে।

বিয়েতে যখন কাজীসাহেব নতুন আমাকে বর-কনের সাক্ষীর জন্য ব্যাবহার করেন, আহা কী আনন্দ। আবার শিল্পী যখন আমাকে দিয়ে ছবি আঁকায়, তখনো খুব ভাল লাগে। বিখ্যাত পন্ডিত, কবি, সাহিত্যিক বিশিষ্ট ব্যাক্তিদের তো আমাকে ছাড়া চলেই না। আরো ভাল লাগে যখন কোন ছোট্ট বাবু তুলতুলে নরম হাতে আমাকে দিয়ে জীবনের প্রথম অক্ষর পাঠের শিক্ষা নেয়।

তবে দুষ্টু কেউ আমাকে কামড়ালে খুবই বিরক্ত হই। সে যখন আমাকে দিয়ে দেওয়ালে বা পাথরে লেখার চেষ্টা করে, সেটি আরো খারাপ লাগে। অনেকে আবার আমার ক্যাপ দিয়ে কান চুলকায় বা দাঁত পরিস্কার করে। উফ! মনে পড়লেই গা গুলিয়ে ওঠে। কালিবিহীন আমাকে ব্যাবহার শেষে ছুড়ে ফেলে দিলে সেটি বড় কষ্টের। তবুও এই ছোট্ট জীবনে কারো কিছু লিখে-আঁকিয়ে স্মৃতিতে থাকার সুখ আর কিসে হতে পারে।

3 comments:

Hey, I can't view your site properly within Opera, I actually hope you look into fixing this.

Bah chomotkar likhechen...

Chomotkar likhechen....Sathe picture tao vhalo....

শেয়ার করুন

Twitter Delicious Facebook Digg Stumbleupon Favorites More